Badhon Blog
badhonmatrimony

ভালবাসা ও মনীষীদের উক্তি

১. পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ উপহার হচ্ছে ভালবাসা।
২. ভালোবাসা ও ঘৃনা দুটোই মানুষের চোখে লিখা থাকে।
৩. একজন সুন্দরী মেয়ের সঙ্গে দেখা ও তাকে অসুন্দর হিসেবে আবিষ্কার করার মধ্যবর্তী সুন্দর সময়ের নাম ভালোবাসা। —রজনী
৪. ভালোবাসা এমন একটা জিনিস- যখন একটা ছেলে বুঝে, তখন মেয়েটা বুঝে না। আর যখন মেয়ে বুঝে, তখন ছেলে বুঝে না। আর যখন ছেলে মেয়ে দুইজনই বুঝে, তখন দুনিযয়া বুঝে না।
৫. ভালবাসাবাসির জন্য অনন্তকালের প্রয়োজন হয় না, একটি মুহূর্তই যথেষ্ট।
৬. চোখে যা দেখা যায় তা দ্রুত রহস্য হারায়। চোখে যা দেখা যায় না, যেমন ‘মন’, অনেকদিন রহস্য ধরে রাখে। —দেয়াল
৭. মন ভালো করার জন্যে খুব বেশী কিছু দরকার হয় না, প্রিয় মানুষ গুলোর একটা হাসিই যথেষ্ট।
৮. প্রতিটা মেয়েদের জীবনেই একজন ছেলে থাকে, যাকে সে মন থেকে কখনোই ভুলতে পারে না। আর প্রতিটা ছেলের জীবনেই একজন মেয়ে থাকে, যাকে সে মন থেকে চায় কিন্তু কখনোই পায় না।
৯. প্রত্যেক ভালবাসায় দুইজন সুখী হলেও তৃতীয় একজন অবশ্যই কষ্ট পাবেই, এটাই হয়তো প্রকৃতির নিয়ম।
১০. অতি কাছের কোন বস্তুকে ক্যামেরা ফোকাস করতে পারে না। মানুষও ক্যামেরার মত অতি কাছের জন ফোকাসের বাইরে থাকে।
১১. রাগ হচ্ছে মানব চরিত্রের অন্ধকার বিষয়ের একটি, যে অন্ধকার বোঝেনা, সে আলোও ধরতে পারে না। —এবং হিমু
১২. বেটা ছেলের জীবনে একবার মাত্র কাঁদার পারমিশন আছে। সেই একবারটা একেক জনার জন্যে একেক রকম। —ইস্টিশন
১৩. পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর পতাকা মেয়েদের খোলা চুল।
এরা বাতাসে উড়লে মনে হয় পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর পতাকাটি উড়ছে।
১৪. কষ্ট মানুষকে পরিবর্তন করে, কষ্ট মানুষকে শক্তিশালীও করে।
১৫. পৃথিবীতে সব নারীদের ডাক উপেক্ষা করা যায়, কিন্তু মায়ের ডাক উপেক্ষা করার মতো ক্ষমতা প্রকৃতি আমাদের দেয়নি।
১৬. রাগী মেয়েরা সংসারী হয়, এরা হৃদয় থেকে ভালোবাসতে জানে।
১৭. পা না ভিজিয়ে সাগর পারি দেওয়া যায়। কিন্তু চোখ না ভিজিয়ে জীবন পাড়ি দেওয়া যায় না। —রুমালী
১৮. পৃথিবীতে আনন্দ এবং দুঃখ সব সময় থাকবে সমান সমান।
বিজ্ঞানের ভাষায়- Conservation of আনন্দ। একজন কেউ চরম আনন্দ পেলে, অন্য জনকে চরম দুঃখ পেতে হবে।
—আজ হিমুর বিয়ে
১৯. দু ধরনের মানুষ সবসময় সত্যি কথা বলে, সাধুসন্ত মানুষ আর যারা ভয়ঙ্কর ক্রিমিনাল। মাঝখানের মানুষ গুলো সত্য মিথ্যা মিশিয়ে বলে।
২০. একজন প্রেমিকের কাছে চন্দ্র হলো তার প্রেমিকার মুখ। আর জোছনা হলো প্রেমিকার দ্বীর্ঘশ্বাস।
২১. লেখালেখি এক নিঃসঙ্গ যাত্রা। —বলপয়েন্ট
২২. মেয়েদের তৃতীয় নয়ন থাকে। এই নয়নে সে প্রেমে পড়া বিষয়টি চট করে বুঝে ফেলে। পুরুষের খারাপ দৃষ্টিও বুঝে।
২৩. অসহায়কে অবজ্ঞা করা উচিত নয়, কারণ মানুষ মাত্রই জীবনের কোন না কোন সময় অসহায়তার শিকার হবে।
—প্রিয়তমেষু
২৪. সব ক্ষমতা নিয়ে একজন দূরে বসে আছেন। ভুল বললাম- দূরে না, কাছেই বসে আছেন। খুব বেশি কাছে বলেই তাকে দেখা যায় না। —একজন হিমু কয়েকটি ঝিঁঝিপোকা
২৫. শরীরের সঙ্গে শরীরের পরিচয়ের আগে যে প্রেম সেটার মত ভাল আর কিছু নেই। —কোথাও কেউ নেই
২৬. মানুষ স্বাধীন না, সে তার মস্তিষ্কের অধীনে বাস করে। —মৃন্ময়ী
২৭. ঈশ্বর মানুষকে প্রচুর ক্ষমতা দিয়েছেন কিন্তু মানুষের মন বোঝার ক্ষমতা দেননি। —আয়নাঘর
২৮. পরিস্থিতি ই মানুষকে তৈরী করে। পরিস্থিতি যখন বদলে যায়, মানুষ ও তখন পাল্টে যায়। মানুষ আসলে জলের মতো। পাত্রের সাথে সাথে আকার বদলায়।
২৯. পৃথিবীতে দুই ধরনের মানুষ আছে। এক ধরনের মানুষ রাগ প্রকাশ করতে পারে, খুশি প্রকাশ করতেপারে না। আরেক ধরনের মানুষ খুশি প্রকাশ করতে পারে, কিন্তু রাগ প্রকাশ করতে পারে না।
৩০. সাধারন হওয়াটা একটা অসাধারন বিষয়, সবাই সাধারন হতে পারে না।
৩১. “I love you” যত সহজে বলা যায়। “আমি তোমাকে ভালোবাসি” অত সহজে বলা যায় না। মুখের কাছে এসে আটকে যায়। ভালোবাসাবাসির কথা বলার জন্যে অন্য একধরনের ভাষা থাকলে ভাল হত। সাইন ল্যাংগুয়েজের মত কোন ল্যাংগুয়েজ। যে ল্যাংগুয়েজে শুধু চোখ ব্যবহার করা হবে।
৩২. সারাদিন কষ্টগুলি বুকের মাঝে চেপে রাখলেও রাতে যেন কোন ভাবেই ঠেকানো যায় না। বুক ফেটে কষ্টগুলো বের না হলেও,চোখ ফেটে বের হয়ে আসে অশ্রু।
৩৩. তুমি যখন ভাল করতে থাকবে, মানুষ তোমাকে হিংসা করতে শুরু করবে। না চাইলেও তোমার শত্রু জন্মাবে।
৩৪. কেউ ভালোবাসা নিয়ে খেলা করলে, তাকে দ্বিতীয় সুযোগ দেওয়াটাই সবচেয়ে বড় অপরাধ।
৩৫. পৃথিবীর সবচেয়ে অসুন্দর দৃশ্য হল লোভে চকচক করা চোখ। আর সবচেয়ে সুন্দর দৃশ্য গভীর মমতায় আদ্র প্রেমিকার চোখ। —পেন্সিলে আঁকা পরী
৩৬. মনে রেখো, আজকের দিনটিই তোমার সেই ভবিষ্যৎ যা নিয়ে তুমি গতকাল চিন্তিত ছিলে।
৩৭. মেয়েদের গায়ের গন্ধ বয়সভেদে একেক রকম, কুমারী মেয়েদের গন্ধ পান পাতার মত।
৩৮. অল্প বয়সের ভালোবাসা অন্ধ গন্ডারের মত, শুধুই একদিকে যায়। যুক্তি দিয়ে, বুদ্ধি দিয়ে, আদর দিয়ে এই গন্ডারকে সামলানো যায় না।
৩৯. মৃত্যুই হচ্ছে মানুষের ঘনিষ্ঠ বন্ধু, তোমার জন্ম হওয়ার পর থেকেই সে তোমাকে পাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে আছে।
৪০. মাঝে মাঝে সুন্দর সুন্দর স্বপ্ন দেখেও মানুষ ভয় পায়। —আকাশ জোড়া মেঘ
৪১. খেয়ালী মানুষের খেয়াল হল পানির বুদবুদের মত, দেখতে সুন্দর কিন্তু ক্ষণস্থায়ী। —বৃষ্টি ও মেঘমালা
৪২. কেউ কাউকে ছাড়া বাঁচবে না এটা খুব বাজে রকমের মিথ্যা কথা। সবাই বাঁচে, খুব ভালোভাবেই বাঁচে, মরে যায় শুধু স্বপ্নগুলো।
৪৩. ভালোবাসার মাঝে হালকা ভয় থাকলে সেই ভালোবাসা মধূর হয়। কেননা, হারানোর ভয়ে প্রিয়জনের প্রতি ভালোবাসা আরো বেড়ে যায়।
৪৪. ভালবাসার মানুষের সাথে বিয়ে না হওয়াটাই বোধ হয় ভাল। বিয়ে হলে মানুষটা থাকে, ভালবাসা থাকে না। আর যদি বিয়ে না হয়, তাহলে হয়তো বা ভালবাসাটা থাকে শুধু মানুষটাই থাকে না। মানুষ এবং ভালবাসা এই দু’য়ের মধ্যে ভালবাসাই হয়তো বেশি প্রিয়।
৪৫. কান্নায় লজ্জার কিছু নেই। যে ভালবাসতে জানে, সে-ই কাঁদতে পারে।
৪৬. পৃথিবীর সবচেয়ে অপ্রীতিকর দৃশ্য হলো পুরুষ মানুষের চোখের পানি। —হিমু রিমান্ডে
৪৭. কাউকে প্রচন্ড ভাবে ভালবাসার মধ্যে এক ধরনের দুর্বলতা আছে। নিজেকে তখন তুচ্ছ এবং সামান্য মনে হয়, এই ব্যাপারটা নিজেকে ছোট করে দেয়।
৪৮. পৃথিবীর সবচেয়ে অসুন্দর দৃশ্য হল, লোভে চকচক করা চোখ। আর সবচেয়ে সুন্দর দৃশ্য গভীর মমতায় আদ্র প্রেমিকার চোখ।
৪৯. কারো উপর মায়া পরে গেলে সে মায়া শুধু বাড়তেই থাকে, কমেনা।
৫০. ভালোবাসা একটা পাখি, যখন খাঁচায় থাকে তখন মানুষ তাকে মুক্ত করে দিতে চায়। আর যখন খোলা আকাশে তাকে ডানা ঝাপটাতে দেখে তখন খাঁচায় বন্দী করতে চায়।
৫১. মেয়ে জাতটাই হচ্ছে মায়াবতীর জাত, তারা তাদের মায়ায় সবাইকে আচ্ছ্বন্ন করে রাখে।
৫২. ভদ্র ছেলেদের জন্য মেয়েদের মনে কখনও প্রেম জাগে না, যা জাগে সেটা হল সহানুভূতি।
৫৩. হাসি সব সময় সুখের অনুভুতি বুঝায় না। মাঝে মাঝে এটাও বোঝায়, আপনি কতটা বেদনা লুকাতে পারেন ।
৫৪. প্রেমের ক্ষমতা যে কি প্রচন্ড হতে পারে, প্রেমে না পড়লে তা বুঝা যায় না। —সঙ্গিনী
৫৫. পৃথিবীতে সবচেয়ে সুখী মানুষ কে? – যার কাছে ঘুম আনন্দময় সে-ই পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ।
৫৬. অতি সাধারন যে মানুষ, তার চরিত্রেও অবাক হয়ে লক্ষ করার মতো কিছু ব্যাপার থাকে। —আমি এবং আমরা
৫৭. অতি কাছের মানুষের অবহেলা মানুষ সহ্য করতে পারে না, মানুষ বড় অভিমানী প্রাণী।
৫৮. ভুল বোঝা সহজ। কিন্তু কঠিন হলো, সেই বোঝা ভুলটি থেকে বেরিয়ে আসা।
৫৯. খারাপ সংবাদের নিয়ম হল, একটা খারাপ সংবাদের পর পর দ্বিতীয় খারাপ সংবাদ টা আসে। খারাপ সংবাদ কখনও একা আসে না।
৬০. ভালোবাসার জন্মের সাথে যেমন দুটি মানুষ জড়িয়ে যায়। তেমনি নিজেদের অজান্তেই কিছু আবেগ, কিছু মায়া, কিছু হিংসাও জন্মে।
৬১. আমরা জানি একদিন আমরা মরে যাবো, এই জন্যেই পৃথিবীটাকে এত সুন্দর লাগে। যদি জানতাম আমাদের মৃত্যু নেই, তাহলে পৃথিবীটা কখনোই এত সুন্দর লাগতো না।
৬২. জীবনে যদি কাওকে সত্যিই মন থেকে ভালবাসো, তাহলে তাকে হারিয়ে যেতে দিওনা। কারণ, চোখের জল হয়তো মুছতে পারবে, কিন্তু হৃদয়ের কান্নার জল কোনো ভাবেই মুছতে পারবেনা।
৬৩. বিলাই আর পুরুষ মানুষ এই দুই জাতের কোন বিশ্বাস নাই। দুইটাই ছোকছুকানি জাত। —অপেক্ষা
৬৪. না পাওয়া ভালোবাসা গুলো সব সময় সত্যি মনে হয়, পাবার পর কত জন মূল্য দিতে পারে?
৬৫. সব গ্রেটম্যানরাই কোনো না কোনো সময়ে বাড়ি থেকে পালিয়েছেন। একমাত্র ব্যতিক্রম রবি ঠাকুর। —জনম জনম
৬৬. ভালোবাসা যদি তরল পানির মত কোন বস্তু হত, তাহলে সেই ভালোবাসায় সমস্ত পৃথিবী তলিয়ে যেত। এমন কি হিমালয় পর্বতও। —এপিটাফ
৬৭. মানবজাতির স্বভাব হচ্ছে সে সত্যের চেয়ে মিথ্যার আশ্রয়ে নিজেকে নিরাপদ মনে করে।
৬৮. জীবনে কুসিৎত সব ব্যাপারগুলি সহজভাবে ঘটে যায়।
অপরূপ রূপবতী একটা মেয়ে হাসতে হাসতে কঠিন কঠিন কথা বলে। —আকাশ জোড়া মেঘ
৬৯. আমরা মানুষের জটিলতা দেখে অভ্যস্ত, সারল্যকে আমরা ভয় করি। কারো ভেতরে ঐ ব্যাপারটি দেখলে থমকে যাই এবং আমাদের মনের একটি অংশ বলতে থাকে নিশ্চয়ই কোন একটা রহস্য আছে। —নবনী
৭০. একজন কাছের মানুষ আরেকজন কাছের মানুষকে তখনি ভয় করে যখন সে তাকে বুঝতে পারে না। —আশাবরী
৭১. প্রকৃতি মাঝে মাঝে মানুষকে এমন বিপদে ফেলে। চোখে পানি আসার সিস্টেম না থাকলে জীবন যাপন হয়তো সহজ হতো। —হিমুর মধ্যদুপুর
৭২. দু’ধরনের মানুষের মধ্যে পাগলামি প্রকাশিত হয়। প্রতিভাবান মানুষ এবং কর্মশূন্য মানুষ। —মিসির আলির চশমা
৭৩. আধুনিক সমাজে বাস করার এই অসুবিধে। মনের কথা খোলাখুলি কখনো বলা যায় না। একটি মেয়েকে ভালো লাগলেও সরাসরি তাকে সেই কথা বলা যাবে না। অনেক ভণিতা করতে হবে। —আকাশ জোড়া মেঘ
৭৪. ক্ষুধা সব মানুষকে এক কাতারে ফেলে। —মেঘের উপর বাড়ি
৭৫. যে নারীকে ঘুমন্ত অবস্থায় সুন্দর দেখায়, সেই প্রকৃত রূপবতী।
৭৬. সরাসরি চোখের দিকে তাকিয়ে কেউ মিথ্যা বলতে পারে না, মিথ্যা বলতে হয় অন্যদিকে তাকিয়ে।
৭৭. স্মৃতির উপর বিশ্বাস করতে নেই। স্মৃতি হচ্ছে প্রতারক, নানানভাবে সে মানুষের সাথে প্রতারণা করে।
৭৮. এই পৃথিবীতে সব ধরনের অপরাধের বিচার হয়। শুধুমাত্র মন ভাঙার অপরাধের বিচার হয়না, কারন এতো বড় অপরাধের বিচার করার ক্ষমতা মানুষের নেই।
৭৯. চোখের জলের মতো গভীর কিছু নাই। একজনের দুঃখ অন্যজনকে স্পর্শ করে না, কিন্তু একজনের চোখের জল অন্যকে স্পর্শ করে ।
৮০. প্রতিটি মানুষের জীবনে কষ্ট আছে। শুধু তা প্রকাশ করার পদ্ধতি ভিন্ন; নির্বোধরা প্রকাশ করে চোখেরপানি দিয়ে, আর বুদ্ধিমানরা প্রকাশ করে মৃদু হাসি দিয়ে।
৮১. যখন কেউ হাসে, তার সাথে পুরো পৃথিবী হাসে। কিন্তু যখন কেউ কাঁদে, সে শুধু একা কাঁদে। কাঁদতে হয় একা একা, এটাই জগতের নিয়ম।
৮২. মানুষের সব কিছুই ছোট ছোট। জীবন ছোট, ভালবাসাবাসির দিন ছোট। শুধু দুঃখের কাল দীর্ঘ ।
৮৩. যখন একা থাকার অভ্যাস হয়ে যায়, ঠিক তখনি স্রষ্টা কিছু মানুষের সন্ধান দেন। যখন তাদেরকে নিয়ে ভাল থাকার অভ্যাস হয়ে যায়, ঠিক তখনি আবার একা হয়ে যেতে হয়।
৮৪. প্রতিটি মেয়েই নিষ্ঠুর হবার অসীম ক্ষমতা নিয়ে জন্মায়।
৮৫. ভালোবাসায় যেমন স্বর্গের সুখের মতো কিছু মুহূর্ত থাকে, ঠিক তেমনি নরকের কষ্টের মতোও কিছু দুঃখ থাকবে। এটাই স্বাভাবিক।
৮৬. দুঃসময়ে কোনো অপমান গায়ে মাখতে হয় না।
৮৭. উত্তপ্ত অবস্থায় যাবতীয় প্রশ্নের উত্তরে নীরব থাকতে হয়। —পোকা
৮৮. বেশি নৈকট্য দূরত্বের সৃষ্টি করে, প্রিয়জনদের থেকে তাই কিছুটা দূরে থাকাই শ্রেয়।
৮৯. যখন কেউ কারো জন্য কাঁদে, সেটা হলো আবেগ।যখন কেউ কাউকে কাঁদায়, সেটা হলো প্রতারণা। আর যখন কেউ কাউকে কাঁদিয়ে নিজেও কেঁদে ফেলে, সেটাই হলো প্রকৃত ভালোবাসা।
৯০. সুখ কোন অলীক বস্তু নয়, এর জন্যে জীবনব্যাপী কোন সাধনার ও প্রয়োজন নেই। প্রভাতের সূর্য কিরন বা রাতের জোৎস্নার মতই এও আপনাতেই আসে। —নিশিকাব্য
৯১. অপেক্ষা হলো শুদ্ধতম ভালোবাসার একটি চিহ্ন। সবাই ভালোবাসি বলতে পারে, কিন্তু সবাই অপেক্ষা করে সেই ভালোবাসা প্রমাণ করতে পারে না।
৯২. সব কিছুতেই টাকা লাগে। জন্মের সময় টাকা লাগে, মৃত্যুর সময়ও টাকা লাগে। —শুভ্র
৯৩. একজন মানুষকে সত্যিকারভাবে জানার উপায় হচ্ছে তার স্বপ্নটা জানা। —কবি
৯৪. মেয়েরা তাদের অশ্রু অন্যদের দেখাতে চায় না, প্রিয়জনদের তো কখনোই না। —কবি
৯৫. আমরা পৃথিবীতে আসি একা, পৃথিবী থেকে ফেরত যাই একা। কিন্ত পৃথিবীতে ঘোরাফিরা করি অনেককে নিয়ে। —আঙুল কাটা জগলু
৯৬. মানুষ হয়ে জন্মানোর সবচেয়ে বড় কষ্ট হচ্ছে, মাঝে মাঝে তার সবকিছু পেছনে ফেলে চলে যেতে ইচ্ছা করে। কিন্তু সে যেতে পারে না, তাকে অপেক্ষা করতে হয়। কিসের অপেক্ষা তাও সে ভালমত জানে না। —রজনী
৯৭. সত্য কখনো কেউ বিশ্বাস করে না। অসত্য কথা, ভুল কথা, বানোয়াট কথা সবাই বিশ্বাস করে।
৯৮. যে ভালোবাসা না চাইতে পাওয়া যায়, তার প্রতি কোনো মোহ থাকে না।
৯৯. তুমি দশটি সত্যর সাথে একটি মিথ্যা মিশিয়ে দাও, সেই মিথ্যাটি সত্য হয়ে যাবে। কিন্তু দশটি মিথ্যার মাঝে একটি সত্যি মিশাও, সত্য সত্যই থেকে যাবে, সেটি আর মিথ্যা হবে না।
১০০. অভিমানের পাল্লা কে কখনো ভারী হতে দিও না। কারণ অভিমানের পাল্লা ভারী হলে সেটা রাগে পরিনত হয়। তখন সাজানো সম্পর্কও এক নিমিষে নষ্ট হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *