0 1 min 2 yrs

চুমু হল দুই ঠোঁট দিয়ে অন্য কারো গাল, কপাল, চিবুক, ঠোঁট, করতল বা অন্য কোন অঙ্গে স্পর্শ করাকে চুম্বন বা চুমু বা চুমো বা চুমা বলে। কিন্তু চুমু হচ্ছে দেখার দৃষ্টিভঙ্গি এবং অনুভবের বিষয়।

বাঙালি চুমু বলতে যৌনতা বোঝেন আর প্রকাশ্য চুমু খাওয়াকে অসামাজিক ও অশ্লীল কাজ মনে করেন। যৌনসঙ্গমকালে চুম্বন একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ স্বীকার করি কিন্তু তাই বলে চুমু অশ্লীল বা অসামাজিক হতে পারে না।

চুমু শুধু যৌনতার অংশ নয়। চুমু হল প্রেম, ভালবাসা, আদর, স্নেহ, মমতা, অনুরাগ, শ্রদ্ধা, সৌজন্য অথবা শুভেচ্ছা প্রকাশ করাও অংশ।

চারদেয়ালের মধ্যে, আড়ালে আবডালে, গোপনে একান্তমুহূর্তকালে চুমুতে যৌনানুভূতি থাকলেও প্রকাশ্য চুমুতে যৌনতার কোনরকম স্পর্শ থাকেন না, থাকে আদর, স্নেহ, প্রেম, ভালবাসা ইত্যাদির বহিঃপ্রকাশ। শুধুমাত্র বিকৃতমনারাই চুমুতে যৌনতা দেখতে পায়। যারা প্রকাশ্য চুম্বনে অশ্লীলতা দেখতে পান তাঁরাই বরং অশ্লীল অসভ্য বর্বর অসামাজিক।

চুমু স্নেহ-ভালবাসা, সৌভাগ্য কামনায়, সম্মান প্রদর্শনার্থে বা কিছু প্রাপ্তির আনন্দ প্রকাশের একটি সাধারণ মাধ্যম ছাড়াও চুমুতে স্বাস্থ্য উপকারিতা আছে। গবেষকদের মতে চুমু মানসিক চাপ কমায়, হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখে, ক্যালোরি ক্ষয় হয়, দাঁতের ক্ষয়রোধ করে, ইনসমনিয়া সারায়, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, মেজাজ ফুরফুরে থাকে, তারুণ্য ধরে রাখে এবং জীবন সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা দেওয়া ছাড়াও শরীরের আরো নানান উপকারীতা আছে চুমুতে।

চুমু দিয়েই প্রকাশ করুন আদর, স্নেহ, ভালবাসা, শ্রদ্ধা, সৌজন্যতা ও ভালোবাসার মানুষটিকে চুম্বন করে সুস্থ, দীর্ঘ ও সুখী জীবন লাভ করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.